ঢাকা ০৩:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পরিচয় গোপন করে প্রেম, প্রেমিকার মৃত্যুতে কারাগারে বিষু

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অনার্সপড়ুয়া রিতা আক্তারের (২৫) আত্মহত্যার ঘটনায় প্রেমিক বিশ্বনাথ ঘোষ ওরফে বিষুকে (২৭) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে তাকে সদর থানার নিতাইগঞ্জ এলাকা থেকে আটক করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। বিষু সদর থানার ডালপট্রি এলাকার গনেষ ঘোষের ছেলে। নিহত রিতা আক্তার ফতুল্লা মডেল থানার পাগলা দেলপাড়ার দক্ষিণ মাস্টারপাড়াস্থ আলী হায়দারের মেয়ে ও অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

এর আগে ২৮ আগস্ট নিহত ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে বিষুকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই পলাশ কান্তি জানান, রিতা আক্তার মুসলিম অপরদিকে বিষু হিন্দু সম্প্রদায়রে। কিন্তু বিষু নিজ পরিচয় গোপন করে গত দুই বছর ধরে রিতার সঙ্গে প্রেম করে আসছিলেন। রিতা দুই মাস পূর্বে বিষয়টি জানতে পেরে তার পরিবারের সদস্যদের অবগত করেন। এ নিয়ে উভয় পরিবারের সদ্যসরা স্থানীয়ভাবে সালিশ-বৈঠক করেন।

কেউ কারো সঙ্গে যোগাযোগ করবে না মর্মে সিদ্ধান্ত হয় এবং উভয়কেই অন্যত্র বিয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। তারপরও বিষু মোবাইলে মেয়েটির সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রাখেন এবং বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। এরই মধ্যে ছেলেটি গত এক মাস পূর্বে পারিবারিকভাবে অন্যত্র বিয়ে করেন।

বিষয়টি জানতে পেরে ২২ সেপ্টেম্বর রাতে মেয়েটি ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ২৩ সেপ্টেম্বর প্রথমে নিহতের বাবা একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন। পরে ২৮ সেপ্টেম্বর মেয়েটির বাবা আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ এনে প্রেমিক বিষুকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে শহরের নিতাইগঞ্জ থেকে বিষুকে আটক করে পুলিশ। পরে শুক্রবার দুপুরে আদালতে নিলে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়।

Tag :
জনপ্রিয়

গাজীপুর ঐতিহাসিক রাজবাড়ী মাঠের অমর একুশে বইমেলার সমাপনী অনুষ্ঠান

পরিচয় গোপন করে প্রেম, প্রেমিকার মৃত্যুতে কারাগারে বিষু

প্রকাশের সময় : ০১:২১:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অনার্সপড়ুয়া রিতা আক্তারের (২৫) আত্মহত্যার ঘটনায় প্রেমিক বিশ্বনাথ ঘোষ ওরফে বিষুকে (২৭) আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে তাকে সদর থানার নিতাইগঞ্জ এলাকা থেকে আটক করে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। বিষু সদর থানার ডালপট্রি এলাকার গনেষ ঘোষের ছেলে। নিহত রিতা আক্তার ফতুল্লা মডেল থানার পাগলা দেলপাড়ার দক্ষিণ মাস্টারপাড়াস্থ আলী হায়দারের মেয়ে ও অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন।

এর আগে ২৮ আগস্ট নিহত ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে বিষুকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার এসআই পলাশ কান্তি জানান, রিতা আক্তার মুসলিম অপরদিকে বিষু হিন্দু সম্প্রদায়রে। কিন্তু বিষু নিজ পরিচয় গোপন করে গত দুই বছর ধরে রিতার সঙ্গে প্রেম করে আসছিলেন। রিতা দুই মাস পূর্বে বিষয়টি জানতে পেরে তার পরিবারের সদস্যদের অবগত করেন। এ নিয়ে উভয় পরিবারের সদ্যসরা স্থানীয়ভাবে সালিশ-বৈঠক করেন।

কেউ কারো সঙ্গে যোগাযোগ করবে না মর্মে সিদ্ধান্ত হয় এবং উভয়কেই অন্যত্র বিয়ের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। তারপরও বিষু মোবাইলে মেয়েটির সঙ্গে যোগাযোগ বজায় রাখেন এবং বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। এরই মধ্যে ছেলেটি গত এক মাস পূর্বে পারিবারিকভাবে অন্যত্র বিয়ে করেন।

বিষয়টি জানতে পেরে ২২ সেপ্টেম্বর রাতে মেয়েটি ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ২৩ সেপ্টেম্বর প্রথমে নিহতের বাবা একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন। পরে ২৮ সেপ্টেম্বর মেয়েটির বাবা আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ এনে প্রেমিক বিষুকে অভিযুক্ত করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে শহরের নিতাইগঞ্জ থেকে বিষুকে আটক করে পুলিশ। পরে শুক্রবার দুপুরে আদালতে নিলে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়।