ঢাকা ০৯:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

প্রয়াত অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের জন্মদিন আজ

আজ বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের একজন শক্তিশালী অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী। বাংলাদেশের মিডিয়া অঙ্গনে একজন শক্তিশালী অভিনেতা হিসেবে তিনি অমর হয়ে থাকবেন। তিনি একাধারে ছিলেন একজন অভিনেতা, পরিচালক, কাহিনীকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপকার ও গল্পকার।

১৯৪১ সালের এই দিনে নোয়াখালীর দৌলতপুরে নানাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

অভিনয়ের শুরুটা মঞ্চ থেকেই করেছিলেন এই গুণী অভিনেতা। এরপর চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন কৌতুক অভিনয়শিল্পী হিসেবে। ‘জলছবি’, ‘যাদুর বাঁশি’, ‘রামের সুমতি’, ‘ম্যাডাম ফুলি’, ‘চুড়িওয়ালা’, ‘মন বসে না পড়ার টেবিলে’ চলচ্চিত্রে তাকে কৌতুক চরিত্রে দেখা যায়। অসংখ্য চলচ্চিত্রে খলনায়কের ভূমিকায়ও অভিনয় করতে দেখা গেছে তাকে। ‘নয়নমণি’, ‘লাঠিয়াল’, ‘অশিক্ষিত’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, ‘স্বপ্নের নায়ক’-এর মতো সিনেমাগুলোতে তাকে খল চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়।

‘অনন্ত প্রেম’, ‘দোলনা’, ‘অচেনা’, ‘মোল্লা বাড়ির বউ’, ‘হাজার বছর ধরে’, ‘চোরাবালি’র মত বেশকিছু চলচ্চিত্রে তিনি পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেন।

এ ছাড়া পরিচালক উদয়ন চৌধুরী, খান আতাউর রহমান, কাজী জহির, সুভাষ দত্তের সঙ্গে তিনি সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। একজন লেখক হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছিলেন এই নন্দিত অভিনয়শিল্পী। কাহিনিকার হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন। পেয়েছেন একুশে পদকসহ একাধিক পুরস্কার।

২০২১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি সবাইকে কাঁদিয়ে গুণী এই অভিনেতা পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

Tag :
জনপ্রিয়

মাদারদিয়া আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা

প্রয়াত অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের জন্মদিন আজ

প্রকাশের সময় : ০৮:৪০:১৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২২

আজ বাংলাদেশের চলচ্চিত্র জগতের একজন শক্তিশালী অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী। বাংলাদেশের মিডিয়া অঙ্গনে একজন শক্তিশালী অভিনেতা হিসেবে তিনি অমর হয়ে থাকবেন। তিনি একাধারে ছিলেন একজন অভিনেতা, পরিচালক, কাহিনীকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপকার ও গল্পকার।

১৯৪১ সালের এই দিনে নোয়াখালীর দৌলতপুরে নানাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

অভিনয়ের শুরুটা মঞ্চ থেকেই করেছিলেন এই গুণী অভিনেতা। এরপর চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন কৌতুক অভিনয়শিল্পী হিসেবে। ‘জলছবি’, ‘যাদুর বাঁশি’, ‘রামের সুমতি’, ‘ম্যাডাম ফুলি’, ‘চুড়িওয়ালা’, ‘মন বসে না পড়ার টেবিলে’ চলচ্চিত্রে তাকে কৌতুক চরিত্রে দেখা যায়। অসংখ্য চলচ্চিত্রে খলনায়কের ভূমিকায়ও অভিনয় করতে দেখা গেছে তাকে। ‘নয়নমণি’, ‘লাঠিয়াল’, ‘অশিক্ষিত’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, ‘স্বপ্নের নায়ক’-এর মতো সিনেমাগুলোতে তাকে খল চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায়।

‘অনন্ত প্রেম’, ‘দোলনা’, ‘অচেনা’, ‘মোল্লা বাড়ির বউ’, ‘হাজার বছর ধরে’, ‘চোরাবালি’র মত বেশকিছু চলচ্চিত্রে তিনি পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করেন।

এ ছাড়া পরিচালক উদয়ন চৌধুরী, খান আতাউর রহমান, কাজী জহির, সুভাষ দত্তের সঙ্গে তিনি সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। একজন লেখক হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছিলেন এই নন্দিত অভিনয়শিল্পী। কাহিনিকার হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছেন। পেয়েছেন একুশে পদকসহ একাধিক পুরস্কার।

২০২১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি সবাইকে কাঁদিয়ে গুণী এই অভিনেতা পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।