ঢাকা ০১:২৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সড়ক নয় যেন মরন ফাঁদ

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ভবনের নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করে সড়ককে মরণফাঁদে পরিণত করেছে। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চললেও কেউ সড়ক সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেন না। তাই সড়কে ধানের চারা রোপন করে প্রতিবাদ করেছে এলাকাবাসী।

উপজেলার ইন্দুরকানী সদর ইউনিয়নের উত্তর ভবানীপুর খেজুরতলার এলজিউডি সড়কের উত্তর ভবানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ চলছে। এলজিউডি সড়ক থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে বিদ্যালয়টি। এডিবি অর্থায়নে নির্মিত ইটসলিংয়ের সড়ক ছয়মাস ধরে নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করায় সড়কটি একবারে নালায় পরিণত হয়েছে। এখন বর্ষার পানি জমে সড়কটি চলাচলের একবারে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এলাকবাসী এই সড়ক দিয়ে মালামাল নেওয়া তো দুরের কথা হেঁটেও যেতে পারছেন না। চরম দূর্ভোগে পড়েছে এলাকবাসী, স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীরা।

উত্তর ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জলিল ও কবির হোসেনসহ একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে জানান, ভবনের মালামাল রাস্তা দিয়ে নেওয়ায় রাস্তার ইট উঠে বড় বড় গর্ত হয়ে গেছে। এখন চলাচল করা যাচ্ছে না। ঠিকাদারের কাছে বললে তারা কোনো গুরুত্ব দিচ্ছেন না।

ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. শহিদুল ইসলাম জানান, উত্তর ভবানীপুর স্কুল কাম সাইক্লোন সেল্টারের নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করায় এই সড়কটি একবারে নষ্ট হয়ে সাধারণের চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়েছে।

উপজেলা এলজিইডির উপ-প্রকৌশলী রবীন্দ্রনাথ হালদার জানান, মালামাল পরিবহণ করতে সড়কের ক্ষতি করলে নির্মানাধীন প্রতিষ্ঠান সড়ক সংস্কার করে দিবে। এলাকাবাসী ওই ঠিকাদারকে চাপ প্রয়োগ করলে সড়ক ঠিক করতে বাধ্য হবে।

ভবন নির্মাণের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম আর কে এন্টারপ্রাইজের সহকারী আকবার আলীর কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকারি রাস্তা সরকারিভাবে ঠিক হবে। এখানে আমাদের কিছু করার নেই, তিনি রাস্তা সংস্কারে রাজি নন।

Tag :
জনপ্রিয়

পুকুরে ধরা পড়ল রুপালী ইলিশ

সড়ক নয় যেন মরন ফাঁদ

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৩:১৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে ভবনের নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করে সড়ককে মরণফাঁদে পরিণত করেছে। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চললেও কেউ সড়ক সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেন না। তাই সড়কে ধানের চারা রোপন করে প্রতিবাদ করেছে এলাকাবাসী।

উপজেলার ইন্দুরকানী সদর ইউনিয়নের উত্তর ভবানীপুর খেজুরতলার এলজিউডি সড়কের উত্তর ভবানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজ চলছে। এলজিউডি সড়ক থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে বিদ্যালয়টি। এডিবি অর্থায়নে নির্মিত ইটসলিংয়ের সড়ক ছয়মাস ধরে নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করায় সড়কটি একবারে নালায় পরিণত হয়েছে। এখন বর্ষার পানি জমে সড়কটি চলাচলের একবারে অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এলাকবাসী এই সড়ক দিয়ে মালামাল নেওয়া তো দুরের কথা হেঁটেও যেতে পারছেন না। চরম দূর্ভোগে পড়েছে এলাকবাসী, স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীরা।

উত্তর ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল জলিল ও কবির হোসেনসহ একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে জানান, ভবনের মালামাল রাস্তা দিয়ে নেওয়ায় রাস্তার ইট উঠে বড় বড় গর্ত হয়ে গেছে। এখন চলাচল করা যাচ্ছে না। ঠিকাদারের কাছে বললে তারা কোনো গুরুত্ব দিচ্ছেন না।

ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. শহিদুল ইসলাম জানান, উত্তর ভবানীপুর স্কুল কাম সাইক্লোন সেল্টারের নির্মাণ সামগ্রী পরিবহন করায় এই সড়কটি একবারে নষ্ট হয়ে সাধারণের চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়েছে।

উপজেলা এলজিইডির উপ-প্রকৌশলী রবীন্দ্রনাথ হালদার জানান, মালামাল পরিবহণ করতে সড়কের ক্ষতি করলে নির্মানাধীন প্রতিষ্ঠান সড়ক সংস্কার করে দিবে। এলাকাবাসী ওই ঠিকাদারকে চাপ প্রয়োগ করলে সড়ক ঠিক করতে বাধ্য হবে।

ভবন নির্মাণের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এম আর কে এন্টারপ্রাইজের সহকারী আকবার আলীর কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সরকারি রাস্তা সরকারিভাবে ঠিক হবে। এখানে আমাদের কিছু করার নেই, তিনি রাস্তা সংস্কারে রাজি নন।